শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
Logo নতুন রিক্সা পেয়েছেন নামাজরত অবস্থায় রিক্সা হারিয়ে যাওয়া সেই সাইদার মোঃ সাইদুল ইসলাম নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ রংপুর জেলার তারাগন্জ উপজেলার হাড়িয়ার কুঠি এলাকার দিনমজুর সাইদার রহমান। বয়সের ভারে আগের মতো আর অন্যের জমিতে দিনমজুরীর কাজ ঠিকমতো করতে পারে না।তাই চিন্তা ভাবনা করে কিস্তির উপড় টাকা নিয়ে ব্যাটারীচালিত একটি রিক্সা ক্রয় করেন। পরিবারের সদস্যদের মুখে আহার তুলে দিতে নিজ এলাকা থেকে ২২/২৩ কিঃমিঃ দুরত্বে রংপুর শহরে গমন করেন, প্রতিদিন কিছু ইনকাম করার জন্য। প্রতিদিনের ন্যায় সেদিন ও গিয়েছিলেন রংপুর শহরে রিক্সাটি নিয়ে। সারাদিন রিক্সা চালানোর পরে নিজ বাড়িতে আসার মুহূর্তে ইশা’র নামাজ আদায় করতে যান রংপুরস্থ কেরামতিয়া মসজিদে। রিক্সাটি তালাবদ্ধ করে তিনি নামাজের উদ্দেশ্য গমন করেন মসজিদের ভেতরে।যখন তিনি নামাজ শেষ করে বাহিরে আসেন, ঠিক সেই মুহুর্তেই হাউ মাউ করে আওয়াজ করে কাঁদতে শুরু করেন।মুসল্লীগণ এবং পথচারীরা এগিয়ে এসে কারণ জানতে চাইলে অসহায় সাইদার রহমান বলেন-“মোর কপাল চুরি করি নিয়া গেইচে/মুই কি করিম এখন” ইত্যাদি বাক্য! অতপর প্রশাসন/মিডিয়ায় ঘটনাটি প্রচার হয়ে যায়। পরবর্তীতে, HDT ও হামরা রংপুরের ছাওয়া গ্রুপ এর প্রচেষ্টায় নতুন রিক্সা ক্রয় করা হয়। রিক্সার পাশাপাশি,চাল- ডাল, মাংস ইত্যাদি ১ মাসের জন্য বাজার করে দেয়া হয়েছে। রিক্সা প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন উন্নয়ন কর্মী, মুহাম্মদ মোরশেদুল হক, হিলফুল ফুজুল এর প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ লামীম ইসলাম। এবং দেলোয়ার হোসেন সহ আরো অনেকে। সবশেষে উপস্থিত ব্যক্তিগণ,HDT এর প্রতিষ্ঠাতা নাসির উদ্দিন হাওলাদার এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। Logo পটিয়া বাইপাসের নতুন বাস স্টেশন সংলগ্ন চত্বরকে শাহচান্দ আউলিয়া চত্বর নামকরণের দাবিতে স্মারকলিপি Logo ডোমারে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত Logo হুইপ পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার প্রতিবাদে পটিয়ায় শ্রমিকলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ Logo ডোমারে স্বপ্নের ঘর বুঝে পেলেন ২০০টি ভূমিহীন – গৃহহীন পরিবার Logo বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ডোমার উপজেলা শাখা সাত সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠিত Logo সুলতানপুর বাড়াই পাড়া ঐতিহ্যবাহী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ্ মাঠে পালিত হলো ঈদুল ফিতরের ঈদের জামাত Logo শিশুকে বাচাতে বলি হলেন শিশুর বাবা Logo ঠাকুরগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ Logo তুচ্ছ ঘটনার জের সাতকানিয়া চরতী সন্রাসী হামলায় মহিলাসহ আহত-৪

প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় পটিয়ায় চলছে কৃষি জমি ও পাহাড়ের মাটি কাটার মহোৎসবঃ উর্ধতন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ

সেরা খবর ডেস্ক / ২২৩ বার পঠিত
সময় : বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৯:৪৭ পূর্বাহ্ণ

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় পটিয়ায়

চলছে কৃষি জমি ও পাহাড়ের মাটি কাটার মহোৎসবঃ উর্ধতন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ

………………….……………………………….

পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে সেলিম চৌধুরী -মহামারী করোনা রোধে সারাদেশে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক এক সপ্তাহের লকডাউনের সুযোগে পটিয়ায় আবারো চলছে দিনে ও রাতের আঁধারে চাষাবাদের জমি ও পাহাড় থেকে মাটি কাটার মহোৎসব। স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রশাসনকে ম্যানেজ করে একটি অসাধু মাটি কাটা চক্র প্রতিদিন পাহাড় ও ফসলি জমি থেকে জমির টপসয়েল (জমির উপরিভাগের উর্বর অংশ) কেটে নিচ্ছে। এ মাটি কাটার ফলে পাহাড়ি বনভূমি যেমন ধ্বংস হচ্ছে, তেমনি কৃষিজমির পরিমাণ দিন দিন কমে যাচ্ছে। তাছাড়া ইটভাটা, বসতভিটা ও পুকুর ভরাট কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে এসব মাটি।ভূমি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুগলি দেখিয়ে এক শ্রেণির দালাল ফসলি জমির টপসয়েল কেটে উজাড় করছে। ফলে এলাকার পরিবেশ বিপর্যয়ের পাশাপাশি কৃষি উৎপাদন ও ফসলের বৈচিত্র্য মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়বে। এ ব্যাপারে জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়ার এমপি সামশুল হক চৌধুরী ধানী জমি থেকে টপসয়েল কাটার বিষয়ে প্রশাসনকে কঠোর নির্দেশ দিলে কিছুদিন বন্ধ থাকে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে বর্তমানে পুরো পটিয়া উপজেলা ঝুড়ে চলছে জমজমাট মাটি কাটার মহোৎসব। এসব মাটি কাটার ব্যাবসায়িরা স্থানীয় কতিপয় রাজনীতির সাথে জড়িত বলে এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানাগেছে।অনুসন্ধানে জানা গেছে, উপজেলার কচুয়াই ও খরনা পাহাড়ি এলাকা, লালরখীল, শহীদ শাহ আলম স্কুলের পাশ থেকে আব্দুর রহিম, সান্টু এবং কাঞ্চনগর চা বাগান (পটিয়া অংশ) থেকে মো. জামাল, আবদুর রউপ, মো. রহিম, দেলোয়ার, ইমরান, মো. মোজাম্মেলসহ ৫০ জনের একটি বিশাল সিন্ডিকেট রাত-দিন এস্কেভেটর দিয়ে মাটি কাটছে। এছাড়াও হাইদগাঁও সাতগাউছিয়া মাজারের পূর্বে, হাইদগাঁও জিয়ারপাড়া, হাইদগাঁও দীঘিরপাড় কালীবাড়ী এলাকা, গুচ্ছগ্রাম, কেলিশহর মডেল টাউন, খিল্লাপাড়া, ছত্তারপেটুয়া, নাগাটা বিল, মা ফাতেমা মাজারের পাশে, রতনপুর বড়ুয়ার টেকের গোয়ালপাড়া, মৌলভীহাট হয়রত আবদুল কাদের জিলানী (রা.) মাজারের পাশে, বরলিয়া, ধলঘাট প্রবাহ স্টোরসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিটি পয়ন্টে ২০-৩০ লোক ও এস্কেভেটর দিয়ে কৃষিজমি থেকে মাটি কেটে ট্রাক, ড্রাম, মিনি পিকআপ ও ট্রলিভর্তি করে উজাড় করছে অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মাটি কাটার গভীরতার পরিমাণ ১০-১৫ ফুট ছাড়িয়ে যাচ্ছে। ফলে কোথাও কোথাও অর্থনৈতিক ও অনৈতিক আগ্রাসনে পার্শ্ববর্তী মালিকের জমিও নষ্ট হচ্ছে। এছাড়াও গত সপ্তাহে হাইদগাঁও এলাকায় শ্রীমতি খালের

বালি উত্তলনের গর্তে পড়ে এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ঐ পরিবার’কে ২০ হাজার টাকা ক্ষতিপুরণ দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া হচ্ছে বলে এলাকার লোকজনের অভিযোগ। এ বিষয়ে পটিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা ইয়াছমিন বলেন, মাটি কাটার বিষয়ে শুনেছি। যে বা যারা এই মাটি কাটার সাথে সম্পৃক্ত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।পটিয়া থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, যেখানে মাটি কাটার খবর পাচ্ছি সেখান থেকে গাড়ি আটক করছি। তবে কোথায় মাটি কাটছে জানা নেই। সঠিক তথ্য পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে লকডাউনের সুযোগে সেই সিন্ডিকেট ফসলি জমি ও পাহাড় থেকে টপসয়েল কেটে উজাড় করছে। পটিয়া প্রতিবছর শুক্ল মৌসুমে মাটিখেকো সিন্ডিকেট চক্র মাটি বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছে বলে সচেতন মহল অভিযোগ করেন।তারা এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট উর্ধতন পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

নতুন রিক্সা পেয়েছেন নামাজরত অবস্থায় রিক্সা হারিয়ে যাওয়া সেই সাইদার মোঃ সাইদুল ইসলাম নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ রংপুর জেলার তারাগন্জ উপজেলার হাড়িয়ার কুঠি এলাকার দিনমজুর সাইদার রহমান। বয়সের ভারে আগের মতো আর অন্যের জমিতে দিনমজুরীর কাজ ঠিকমতো করতে পারে না।তাই চিন্তা ভাবনা করে কিস্তির উপড় টাকা নিয়ে ব্যাটারীচালিত একটি রিক্সা ক্রয় করেন। পরিবারের সদস্যদের মুখে আহার তুলে দিতে নিজ এলাকা থেকে ২২/২৩ কিঃমিঃ দুরত্বে রংপুর শহরে গমন করেন, প্রতিদিন কিছু ইনকাম করার জন্য। প্রতিদিনের ন্যায় সেদিন ও গিয়েছিলেন রংপুর শহরে রিক্সাটি নিয়ে। সারাদিন রিক্সা চালানোর পরে নিজ বাড়িতে আসার মুহূর্তে ইশা’র নামাজ আদায় করতে যান রংপুরস্থ কেরামতিয়া মসজিদে। রিক্সাটি তালাবদ্ধ করে তিনি নামাজের উদ্দেশ্য গমন করেন মসজিদের ভেতরে।যখন তিনি নামাজ শেষ করে বাহিরে আসেন, ঠিক সেই মুহুর্তেই হাউ মাউ করে আওয়াজ করে কাঁদতে শুরু করেন।মুসল্লীগণ এবং পথচারীরা এগিয়ে এসে কারণ জানতে চাইলে অসহায় সাইদার রহমান বলেন-“মোর কপাল চুরি করি নিয়া গেইচে/মুই কি করিম এখন” ইত্যাদি বাক্য! অতপর প্রশাসন/মিডিয়ায় ঘটনাটি প্রচার হয়ে যায়। পরবর্তীতে, HDT ও হামরা রংপুরের ছাওয়া গ্রুপ এর প্রচেষ্টায় নতুন রিক্সা ক্রয় করা হয়। রিক্সার পাশাপাশি,চাল- ডাল, মাংস ইত্যাদি ১ মাসের জন্য বাজার করে দেয়া হয়েছে। রিক্সা প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন উন্নয়ন কর্মী, মুহাম্মদ মোরশেদুল হক, হিলফুল ফুজুল এর প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ লামীম ইসলাম। এবং দেলোয়ার হোসেন সহ আরো অনেকে। সবশেষে উপস্থিত ব্যক্তিগণ,HDT এর প্রতিষ্ঠাতা নাসির উদ্দিন হাওলাদার এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

নতুন রিক্সা পেয়েছেন নামাজরত অবস্থায় রিক্সা হারিয়ে যাওয়া সেই সাইদার মোঃ সাইদুল ইসলাম নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ রংপুর জেলার তারাগন্জ উপজেলার হাড়িয়ার কুঠি এলাকার দিনমজুর সাইদার রহমান। বয়সের ভারে আগের মতো আর অন্যের জমিতে দিনমজুরীর কাজ ঠিকমতো করতে পারে না।তাই চিন্তা ভাবনা করে কিস্তির উপড় টাকা নিয়ে ব্যাটারীচালিত একটি রিক্সা ক্রয় করেন। পরিবারের সদস্যদের মুখে আহার তুলে দিতে নিজ এলাকা থেকে ২২/২৩ কিঃমিঃ দুরত্বে রংপুর শহরে গমন করেন, প্রতিদিন কিছু ইনকাম করার জন্য। প্রতিদিনের ন্যায় সেদিন ও গিয়েছিলেন রংপুর শহরে রিক্সাটি নিয়ে। সারাদিন রিক্সা চালানোর পরে নিজ বাড়িতে আসার মুহূর্তে ইশা’র নামাজ আদায় করতে যান রংপুরস্থ কেরামতিয়া মসজিদে। রিক্সাটি তালাবদ্ধ করে তিনি নামাজের উদ্দেশ্য গমন করেন মসজিদের ভেতরে।যখন তিনি নামাজ শেষ করে বাহিরে আসেন, ঠিক সেই মুহুর্তেই হাউ মাউ করে আওয়াজ করে কাঁদতে শুরু করেন।মুসল্লীগণ এবং পথচারীরা এগিয়ে এসে কারণ জানতে চাইলে অসহায় সাইদার রহমান বলেন-“মোর কপাল চুরি করি নিয়া গেইচে/মুই কি করিম এখন” ইত্যাদি বাক্য! অতপর প্রশাসন/মিডিয়ায় ঘটনাটি প্রচার হয়ে যায়। পরবর্তীতে, HDT ও হামরা রংপুরের ছাওয়া গ্রুপ এর প্রচেষ্টায় নতুন রিক্সা ক্রয় করা হয়। রিক্সার পাশাপাশি,চাল- ডাল, মাংস ইত্যাদি ১ মাসের জন্য বাজার করে দেয়া হয়েছে। রিক্সা প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন উন্নয়ন কর্মী, মুহাম্মদ মোরশেদুল হক, হিলফুল ফুজুল এর প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ লামীম ইসলাম। এবং দেলোয়ার হোসেন সহ আরো অনেকে। সবশেষে উপস্থিত ব্যক্তিগণ,HDT এর প্রতিষ্ঠাতা নাসির উদ্দিন হাওলাদার এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD